বিকাশের মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ফি (NID Card Correction Fee) জমা দেওয়ার নিয়ম

জাতীয় পরিচয়পত্র বাংলাদেশের প্রতিটি নাগরিকের একটি পরিচয় পত্র যা দিয়ে বাংলাদেশের একজন নাগরিককে চেনা যাবে। ভোটার আইডি কার্ড / জাতীয় পরিচয়পত্রে যদি ভুল থাকে, তাহলে তা সংশোধন করার জন্য অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। আজকের এই অনুচ্ছেদে আমরা দেখাবো কিভাবে আপনি জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ফি (NID Card Correction Fee ) জমা দিতে পারবেন।

শিরোনামঃ

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ফি (NID Card Correction Fee) জমা দেওয়ার নিয়ম

মোবাইলের মাধ্যমে আপনি কিভাবে আপনার ভোটার আইডি কার্ড / জাতীয় পরিতচয়পত্র সংশোধন ফি জমা দিতে পারবেন। আপনার হাতের কাছের মোবাইলের মাধ্যমে কিভাবে সংশোধন ফি জমা দিতে পারবেন। ভোটার আইডি সংশোধন করার নিয়ম জানার আগে, আমরা জেনে নেই কোন প্রকারের তথ্য সংশোধনের জন্য কত টাকা প্রদান করতে হবে।

আপনি যখন জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন / ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে অনলাইনে প্রবেশ করবেন, তখন আপনি ৩টি অপশন পাবেন। এই ৩টি অপশন সংশোধন করার চার্জ আলাদা আলাদা। প্রতিটি অপশনের ভুল সংশোধন করতে আলাদা আলাদা ফি প্রদান করতে হবে কেননা কিছু তথ্য জাতীয় পরিচয়পত্রের কার্ডে থাকে। যা সংশোধন করতে আপনাকে কার্ডি রিইস্যু করতে হবে। কার্ডটি রিইস্যু করতে যা খরচ পড়বে তা আপনাকে বহন করতে হবে।

See also  অনলাইন থেকে জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড ( NID Card Download ) করুন খুব সহজেই

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ফি (NID Card Correction Fee) কত?

ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য সংশোধনের ধরণ অনুযায়ী জাতীয় পরিচয়পত্রের সংশোধন ফি বিভিন্ন হয়ে থাকে। নিচের ছকে সকল ফি’র সাথে ১৫% ভ্যাট অন্তর্ভুক্ত আছে। প্রথমবার সংশোধন করার পর যদি আবার ভুল হয়ে থাকে তাহলে পরবর্তী সংশোধন করতে আবেদনের সময় ফি’র পরিমাণ চক্রাকারে বৃদ্ধি পাবে। নিচের ছকে সংশোধন ফি দেখানো হলো।

সংশোধনের ধরণফি’র পরিমাণ
এনআইডির তথ্য সংশোধন ( NID Info Correction)২৩০ টাকা
অন্যান্য তথ্য সংশোধন (Other Info Correction)১১৫ টাকা
উভয় তথ্য সংশোধন (Both Info Correction)৩৪৫ টাকা
রিইস্যু ( Duplicate Regular)৩৪৫ টাকা
রিইস্যু জরুরী ( Duplicate Urgent)৫৭৫ টাকা
টেবিলঃ জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ফি প্রদান

উপরিউক্ত টেবিলে আপনারা দেখতে পাচ্ছেন কোন তথ্য সংশোধন করতে কত টাকা প্রদান করতে হবে। এনআইডির তথ্য সংশোধন ( NID Info Correction) করতে আপনাকে ২৩০ টাকা, অন্যান্য তথ্য সংশোধন (Other Info Correction) করতে ১১৫ টাকা, উভয় তথ্য সংশোধন (Both Info Correction) করতে ৩৪৫ টাকা বিভিন্ন মোবাইল ব্যাংকিং অথবা ব্যাংক ট্রান্সজাকশনের মাধ্যমে আপনি জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ফি (NID Card Correction Fee ) জমা দিতে পারবেন।

তথ্য সংশোধন ফি’র (NID Card Correction Fee) পরিমাণ কত?

আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র বা স্মার্ট কার্ডে ছাপা আছে এমন তথ্য সংশোধন করতে আপনাকে প্রথমবার সংশোধন ফি ২৩০ টাকা দিতে হবে। আপনার তথ্য সংশোধন বলতে নিজ নাম/ পিতা/ মাতা/ স্বামী-স্ত্রীর নাম/ ঠিকানা/ রক্তের গ্রুপ ইত্যাদিকে বোঝায়। এই সকল তথ্য ২য়, ৩য় বার সংশোধন করতে যথাক্রমে ৩৪৫ টাকা এবং ৫৭৫ টাকা ফি প্রদান করতে হবে। নিচের ছকে তথ্য সংশোধন ফি’র পরিমাণ দেখানো হলো।

১ম বার২য় বার৩য় বার
২৩০ টাকা৩৪৫ টাকা৫৭৫ টাকা

অন্যান্য তথ্য সংশোধন ফি’র (NID Card Correction Fee) পরিমাণ কত?

আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র বা স্মার্ট কার্ডে ছাপা হয়নি এমন তথ্য যেমন, শিক্ষাগত যোগ্যতা, পেশা, ধর্ম, পার্সপোর্ট ও ড্রাইভিং লাইসেন্স নম্বর, মোবাইল নম্বর ইত্যাদি সংশোধন করতে আপনাকে ১১৫ টাকা দিতে হবে।

See also  জাতীয় পরিচয়পত্র (NID GOV BD) রেজিস্ট্রেশন, ডাউন*লোড, সংশোধন, রিইস্যু এবং অন্যান্য

প্রতিবার সংশোধন করার জন্য আপনাকে ১১৫ টাকা করে ফি প্রদান করতে হবে। আপনি আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ফি কত লাগবে, তা হিসেব করার জন্য নিচের লিংকে ক্লিক করতে হবে।

আপনি যদি আপনার ভোটার আইডি কার্ড / জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ফি (NID Card Correction Fee) প্রদান করতে হবে।

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ফিস/চার্জ (NID Card Correction Fee) প্রদানের মাধ্যম

আপনি ভোটার আইডি কার্ড / জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ফি জমা দেওয়ার ন্যূনতম ৩০ মিনিট সময় লাগবে। ফিস/চার্জ প্রদানের প্রায় ৩০ মিনিট পর আপনি আপনার সংশোধন বা হারানোর জন্য আবেদন করতে পারবেন। আপনি নিম্নোক্ত মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে আপনার ফিস/চার্জ প্রদান করতে পারবেন।

বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ফি (NID Card Correction Fee) প্রদান

বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ফি (NID Card Correction Fee) প্রদান করতে হলে আপনাকে একটা বিকাশ একাউন্ট লাগবে যার মাধ্যমে আপনি ফি দিতে পারবেন। উক্ত একাউন্টে পর্যাপ্ত পরিমাণ টাকা থাকতে হবে। নিচে কিভাবে বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ফি (NID Card Correction Fee) প্রদান করবেন তার ধাপসমূহ নিচে প্রদান করো হলো।

ধাপ-১ঃ বিকাশ একাউন্ট লগ ইন

বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন ফি প্রদান করার জন্য আপনাকে বিকাশ একাউন্টে লগ ইন করতে হবে। সেজন্য আপনাকে আপনার বিকাশ একাউন্ট মোবাইল নাম্বার ও পিন দিয়ে লগ ইন করলে নিচের ছবির মতো একটি ইন্টারফেস আসবে। তারপর আপনাকে “পে বিল” অপশনে ক্লিক করতে হবে।

ধাপ-২ঃ সরকারি বিল তথা সংশোধন ফিস/চার্জ প্রদান

উপরিউক্ত ধাপে “পে বিল” অপশনে ক্লিক করলে আপনি বিকাশ অ্যাপ দিয়ে সংশোধন ফিস / চার্জ দেওয়ার জন্য আপনাকে আরেকটি ইন্টারফেস পাবেন। এই ইন্টারফেসে আপনি সব প্রতিষ্ঠান সেকশনের “সরকারি ফি / NID Service” অপশনে ক্লিক করলে আপনি আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ফি (NID Card Correction Fee) প্রদান করতে পারবেন।

See also  খুব সহজে অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান (NID Card Check Online)

ধাপ-৩ঃ NID Service / তথা সংশোধন ফিস/চার্জ প্রদান

সরকারি ফি জমা দেওয়ার এই ধাপে আপনি কয়েকটি অপশন পাবেন, যেখানে আপনাকে আপনার আবেদনের ধরণ সিলেক্ট করতে হবে এবং আপনি যেই আইডিতে NID Card Correction Fee জমা দিতে চান সেই আইডি কার্ডের নাম্বার প্রদান করতে হবে। তারপর এগিয়ে যান অপশনে ক্লিক করলে পরবর্তী ধাপে চলে যাবেন।

ধাপ-৪ঃ NID Service এর আবেদনের ধরণ নির্বাচন

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধনের এই ধাপে আপনাকে আবেদনের ধরণ নির্বাচন করতে হবে। এই ধাপে আপনি নিচের ছবির মতো পাঁচটি ধাপ পাবেন। এই পাঁচটি ধাপ হলো – NID Info Correction, Other Info Correction, Both Info Correction, Duplicate Regular এবং Duplicate Urgent ইত্যাদি অপশন পাবেন। আপনার আবেদনের ধরণ অনুসারে আপনি আপনারটা নির্বাচন করবেন।

আপনার উপরিউক্ত ধাপগুলো শেষ হবার পর আপনাকে আপনার বিকাশ একাউন্টের পিন নম্বর দিয়ে ফি পরিশোধ করতে হবে। সফল ভাবে ফি পরিশোধ হলে আপনি একটি পেমেন্ট রিসিট পাবেন যা আপনার মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে আপনার মোবাইলে ফোনে চলে আসবে। পরবর্তীতে যদি আরও ইসিতে ফি প্রদান করতে হয় এর জন্য আপনি প্রক্রিয়াটি আপনার মোবাইলের বিকাশ অ্যাপে Save করে রাখতে পারেন।

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করতে কত দিন সময় লাগে?

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করতে বেশি সময় লাগেনা। পূর্বে ইসির সার্ভার জটিলতার জন্য ভোটার আইডি কার্ড সংশোধনে করতে বেশি সময় লাগতো। বর্তমানে, একটি জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করার জন্য মোটামুটি ১-২ সপ্তাহ সময় লাগে। মাঝে মাঝে ২ সপ্তাহের বেশি সময় লাগে।

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করতে কি কি দলিলপত্র / কাগজপত্র লাগে?

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করার জন্য প্রয়োজন অনুসারে বিভিন্নরকমের দলিলাদি / কাগজপত্র দরকার। আপনি যদি আপনার নাম সংশোধন করতে চান তাহলে আপনার এসএসসি / সমমান এবং এইচএসসি / সমমান পরিক্ষার সনদপত্র। মনে রাখবেন, যে সনদপত্রে আপনার নাম অর্থাৎ যা সংশোধন করতে চান তার জন্য যেসকল সনদ জমা দিচ্ছেন তা অবশ্যই সঠিক থাকতে হবে। অন্যথায় আপনার আবেদনপত্রটি বাতিল হয়ে যাবে। বিস্তারিত

জাতীয় পরিচয়পত্র চেক কিভাবে করবো?

জাতীয় পরিচয়পত্র চেক করা খুব সহজ। আপনি চাইলে আপনার মোবাইল দিয়েই এই কাজটি করতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের এনআইডি উইং এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে যেতে হবে। তারপর আপনার ভোটার আইডি কার্ডের নাম্বার এবং জন্মতারিখ দিয়ে আপনার জন্য একটি একাউন্ট তৈরি করতে হবে। তারপর, জাতীয় পরিচয়পত্র হালনাগাত করার সময় যে মোবাইল নাম্বার দিয়েছেন ঐ নাম্বারে একটি OTP যাবে। সেই OTP ব্যবহার করে ভেরিফাই করার পর আপনার ফেস ভেরিফিকেশন করতে হবে। ফেস ভেরিফিকেশন হয়ে গেলে আপনি আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র চেক করতে পারবেন।

About nidgov

আমি গত ৫ বছর থেকে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে কাজ করেছি। আমি আমার স্নাতক শেষ করেছি হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। আমার বিষয় ছিলো কম্পিউটার সায়েন্স এবং ইঞ্জিনিয়ারিং (ইঞ্জি.)।

View all posts by nidgov →