পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম 2023

আপনার কি ভোটার আইডি কার্ড হারিয়ে গিয়েছে? অথবা পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে চাচ্ছেন। তাহলে নিকটস্থ থানায় জিডি করে এবং অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড রি-ইস্যুর জন্য আবেদন করে পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন খুব সহজেই।

আপনি যদি একজন পুরাতন ভোটার হয়ে থাকেন বা ২০১৬ অথবা ২০১৭ সালের আগের ভোটার হয়ে থাকেন এবং বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন অফিস থেকে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র (NID) পেয়ে থাকেন তাহলে আপনারা আর অনলাইনে পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন না। তবে (NID) অ্যাকাউন্ট লগইন করে পুরাতন জাতীয় পরিচয় পত্র যাচাই করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ জাতীয় পরিচয় পত্র রেজিষ্ট্রেশন পদ্ধতি

আপনি যদি একজন পুরাতন ভোটার হয়ে থাকেন বা ২০১৬/২০১৭ এর আগের ভোটার হয়ে থাকেন তাহলে আর অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন না। অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড পেতে হলে থানায় ভোটার আইডি কার্ড হারিয়ে যাওয়া/ নস্ট হয়ে যাওয়ার জন্য জিডি করতে হবে।

পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড পাওয়ার জন্য নির্দেশনা

পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড পাওয়ার জন্য কিছু নির্দেশনা রয়েছে চলন এক নজরে তিনটি নির্দেশনা দেখে আসি।

  1. নতুন নিবন্ধিত ভোটার তাদের জাতীয় পরিচয়পত্র (NID) এখনও মুদ্রিত হয়নি, তারা বিনা খরচে অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র অনুলিপি ডাউনলোড করতে পারবেন।
  2. যারা পূর্বে জাতীয় পরিচয় পত্র (NID) পেয়েছিলেন তাদের পুনরায় জাতীয় পরিচয়পত্র অনুলিপি ডাউনলোড করার জন্য ফি দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড রি ইস্যুর জন্য আবেদন করতে হবে।
  3. যারা সংশোধনের জন্য অনলাইনে আবেদন করেছেন তারা সংশোধিত জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করতে পারবেন আপন ভাবে জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন হওয়ার পরে।

পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম 2023

পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে (NID) বা স্মার্ট কার্ড নাম্বার উল্লেখ করে নিকটস্থ থানায় এনআইডি হারানোর জিডি করতে হবে। এরপর services.nidw.gov.bd থেকে রেজিস্ট্রেশন করে NID রিইস্যুর জন্য আবেদন করতে হবে। আবেদন অনুমোদন হলে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন।

See also  জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন (NID Card Correction) করার সহজ উপায়

আরো পড়ুনঃ ভোটার আইডি কার্ড দেখার নিয়ম

উপরের নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করলে আপনি খুব সহজেই যেকোনো পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করে নিতে পারবেন হাতে থাকা স্মার্টফোনের মাধ্যমে তবে আমরা উপরে বলেছি পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড নেওয়ার জন্য অবশ্যই আপনাকে নিকটস্থ থানায় জিডি করতে হবে চলুন তাহলে আমরা থানায় জিরি করার সহ কিভাবে পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করবেন সে সম্পর্কে আরো একটু বিস্তারিত জেনে নেই কয়েকটি স্টেপের মাধ্যমে।

ধাপ ১: NID হারানোর সাধারণ জিডি করুন

ন্যাশনাল আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্র হারানোর জন্য প্রথমে আপনাকে আপনার নিকটস্থ থানায় একটি জিডি করতে হবে। ভোটার আইডি কার্ড হারানোর জিডি করতে কোন ফি প্রদান করতে হবে না।

আপনার নাম, জন্মতারিখ, এন আই ডি নম্বর এবং বাবা ও মায়ের নাম লিখে বর্তমান ঠিকানা ও স্থায়ী ঠিকানা লিখে জিডি পেপার তৈরি করতে হবে চাইলে এই লেখাগুলো আপনি কলম দিয়েও লিখতে পারেন। এবং আবেদনপত্র লেখা শেষ হলে অবশ্যই এটির একটি প্রিন্ট কপি বা ফটোকপি আপনার কাছে রেখে দিবেন।

জিডি লেখা সম্পন্ন হলে আপনার নিকটস্থ থানায় আপনার আবেদনটি জমা করলে থানায় কর্মরত অফিসার আপনার আবেদনটি জমা নেবে এবং আপনার আবেদনের প্রেক্ষিতে একটি জিডি তৈরি করবে। এবং অফিসারের স্বাক্ষর ও জিডি নম্বর দিয়ে দিবেন।

ধাপ ২: জাতীয় পরিচয় ওয়েবসাইটে নিবন্ধন করুন 

আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের ভোটার আইডি কার্ডের নাম্বার দিয়ে এনআইডি অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হবে। আপনার যদি আগে থেকেই বাংলাদেশ জাতীয় পরিচয়পত্রের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটের নিবন্ধন করা থাকে তাহলে শুধুমাত্র লগইন করলেই হবে।

আরো পড়ুনঃ ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি ডাউনলোড

আপনার যদি পড়বে NID রেজিস্ট্রেশন করা না থাকে তাহলে নতুন রেজিস্ট্রেশনের জন্য আপনার ফেস ভেরিফিকেশন করতে হবে face verification এর জন্য আপনার অন্য একটি ফোন থাকতে হবে এবং সেই ফোনে NID Wallet আমের অ্যাপসটি ইন্সটল করে রাখতে হবে।

See also  ভোটার আইডি কার্ড হারিয়ে (NID Card Lost) গেলে ডাউন*লোড এবং রিইস্যু করার নতুন নিয়ম

NID Wallet এর মাধ্যমে আপনার ফেস ভেরিফিকেশন করতে হবে। তাই রেজিস্ট্রেশনের পূর্বে অবশ্যই দুটি ফোন অথবা একটি কম্পিউটার এবং একটি মোবাইল সাথে থাকা লাগবে।

  • পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড ও NID রেজিস্ট্রেশন করতে ভিজিট করুন https://services.nidw.gov.bd/nid-pub/claim-account 
  • জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর / ফর্ম নম্বর দিয়ে জন্ম তারিখ DD-MM-YYYY এই ফরমেটে লিখুন এবং ক্যাপচার কোড পূরণ করে Submit বাটনে ক্লিক করুন।
  • বর্তমান ঠিকানা ও স্থায়ী ঠিকানা সিলেক্ট করুন এবং মোবাইলে এসএমএস ভেরিফিকেশন সম্পন্ন করুন।
  • এরপর দ্বিতীয় মোবাইলটিতে NID Wallet অ্যাপটি ওপেন করে QR Code স্ক্যান করুন।
  • QR Code স্ক্যান করলে ক্যামেরা ওপেন হবে এখানে আপনার চোখ সরাসরি ক্যামেরার দিকে রাখুন এবং এরপরে আপনার মাথা ডান দিকে ঘুরান এরপরে বাম দিকে ঘুরাবেন।
  • সবশেষে face verification সম্পন্ন হলে আপনার এন আইডি একাউন্টের জন্য একটি পাসওয়ার্ড সিলেক্ট করে নতুন ভাবে লগইন করুন।

ধাপ ৩: রিইসুর জন্য আবেদন করুন

সঠিকভাবে পাসওয়ার্ড সেট আপ করার পরে লগইন করলে মোট ৪ টি অপশন দেখতে পাবেন।

  1. প্রোফাইল 
  2. রিইসু 
  3. পাসওয়ার্ড পরিবর্তন
  4. ডাউনলোড 

এখান থেকে রিইসু অপশনটি সিলেক্ট করুন। এবং নতুন একটি ইন্টারফেস দেখতে পাবেন এখান থেকে (এডিট) এ ক্লিক করুন।

এবার নতুন একটি উইন্ডো ওপেন হবে এখানে মেনু থেকে রিইসুর জন্য তথ্য অপশনটি সিলেক্ট করুন। এবং পুনর্মুদ্রণ কারণ, জিডি নম্বর, পুলিশ অফিসারের নাম, থানা, পুলিশ অফিসারের পদবী, জিডির তারিখ উল্লেখ করে পরবর্তী বাটনে ক্লিক করুন।

NID রিইসু ফি প্রদানকরুন।

উপরে সঠিক তথ্য সাবমিট করার পরে নতুন উইন্ডোতে দেখতে পাবেন You have total deposit of 0 BDT এখানে রে ইস্যু করার জন্য অবশ্যই নির্ধারিত ফি ৩৪৫ টাকা (ভ্যাট সহ) এবং জরুরী ৫৭৫ টাকা ভ্যাট সহ প্রদান করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড

See also  রোমানিয়ার ভিসা চেক করার সব থেকে সহজ নিয়ম ২০২৩

NID রিইসু ফি প্রদান করে আবেদনের ধরণ রিইস্যু ও বিতরণের ধরন Regular বা Urgent সিলেক্ট করুন। (রেগুলার সিলেক্ট করলে রেগুলার আবেদন ফি ৩৪৫ টাকা জমা দিতে হবে এবং জরুরী হলে জরুরী আবেদন ফি ৫৭৫ টাকা পরিশোধ করতে হবে। এনআইডি আবেদন ফি বিকাশ রকেট নগদ যেকোনো মাধ্যমে প্রদান করতে পারবেন।

ধাপ ৪: NID রিইসু আবেদন সাবমিট করুন 

NID রিইসু ফি জমা দেওয়া হয়ে গেলে এবার আপনার নিকটস্থ থানা থেকে সাধারণ জিডি কপি স্ক্যান করে আপনার মোবাইল বা কম্পিউটার থেকে আপলোড করতে হবে। জিডি কপি অবশ্যই সোজাভাবে তুলবেন এবং ছবি তোলার সময় ভালো আলোর মধ্যে তুলবেন যাতে আপনার জিডির লেখাগুলো স্পষ্ট ভাবে বোঝা যায়।

NID বা জাতীয় পরিচয় পত্র রিইসু আবেদন সাবমিট করার ৭ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে আপনার আবেদনটি এপ্রুভ হয়ে যাবে।

ধাপ ৬: পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করুন

আপনার আবেদন Approved হলে মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে। এরপরে ভিজিট করুন services.nidw.gov.bd এখানে জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর/ইউজার নেইম ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন। প্রোফাইল মেনু থেকে ডাউনলোড অপশনে ক্লিক করলেই পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন।

পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড সম্পর্কে জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী (FAQ)

পুরাতন আইডি কার্ড কিভাবে বের করব?

পুরাতন আইডি কার্ড বের করার জন্য নিকটস্থ থানায় আইডি কার্ড হারানোর জন্য জিডি করুন এবং জিডি কপি নিয়ে services.nidw.gov.bd ওয়েবসাইট NID রিইসুর জন্য আবেদন করুন আবেদন Approved হলে NID Number ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করে। প্রোফাইল থেকে পুরাতন আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন।

সংশোধিত ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করব কিভাবে?

সংশোধিত ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য ভিজিট করুন services.nidw.gov.bd এখানে NID একাউন্টে লগইন করুন এবং প্রোফাইল মেনু থেকে ডাউনলোড এ ক্লিক করলেই সংশোধিত ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন।

শেষ কথা

সম্মানিত পাঠক বৃন্দ আমাদের আজকের নিবন্ধনে পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করবেন কিভাবে এই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছি আশা করি আপনি বুঝতে পেরেছেন কিভাবে পুরাতন NID কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করতে হয়। 

পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড সম্পর্কে আপনার যদি কোন মন্তব্য থাকে অবশ্যই আমাকে জানাতে পারেন এবং আমাদের নিবন্ধন পোস্টে অসুবিধা হলে কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন আমরা আপনার কমেন্টের রিপ্লাই দেওয়ার চেষ্টা করব। 

NID সম্পর্কিত সকল সেবা পেতে সেবা পেতে NID Gov BD এর সাথেই থাকুন। 

About nidgov

আমি গত ৫ বছর থেকে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে কাজ করেছি। আমি আমার স্নাতক শেষ করেছি হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। আমার বিষয় ছিলো কম্পিউটার সায়েন্স এবং ইঞ্জিনিয়ারিং (ইঞ্জি.)।

View all posts by nidgov →