জাতীয় পরিচয় পত্র বাতিল করার নিয়ম।(Rules For Cancellation Of NID)

জাতীয় পরিচয় পত্র বাতিল করার নিয়ম।(Rules For Cancellation Of NID)

আপনি যদি আপনার নাম,বয়স পরিবর্তন করে দ্বৈত ভোটার বা একাদিক ভোটার হন তাহলে এখনি তা বাতিল করুন।

দ্বৈত ভোটার বা একাদিকবার ভোটার হওয়া এবং বয়স বেশি দেখিয়ে অপ্রাপ্ত বয়সে ভোটার হওয়া আইনত অপরাধ।

আপনি যদি দ্বৈত ভোটার হন তাহলে নির্বাচন কমিশনে ক্ষমা চেয়ে ভোটার আইডি কার্ড বাতিল করতে পারেন।

কারন অন্যথায় ধরা পড়লে আপনার জেল ও জরিমান হতে পারে।

তাই আজকের আয়োজনে আমরা জানবো, কেনো জাতীয় পরিচয় পত্র বাতিল করতে হবে,এবং জাতীয় পরিচয় পত্র বাতিল করার নিয়ম সম্পর্কে।

আপনার জন্য প্রয়োজনীয় কিছু পোষ্টঃ

জেনে নিন ছবি তোলার কতদিন পর এনআইডি কার্ড হাতে পাবেন।

আপনার NID দিতে কয়টি সিম রেজিষ্ট্রেশন হয়েছে।

কেনো জাতীয় পরিচয় পত্র বাতিল করতে হবে

আপনি যদি অবৈধভাবে একাধিকবার এবং ভুল তথ্য দিয়ে ভোটার আইডি কার্ড নিবন্ধন করে থাকেন তাহলে আপনাকে NID কার্ড বাতিল করতে হবে।আপনি নিচের এই সকল ক্ষেত্রগুলোর কারনে ভোটার আইডি কার্ড বাতিল করবেন।

দ্বৈত ভোটার হলে

আপনি যদি একাধিকবার ভোটার বা দ্বৈত ভোটার হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই ভোটার আইডি কার্ড বাতিল করতে হবে।

এর জন্য অবশ্যই আপনি উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে একটি লিখিত ক্ষমা পার্থনা করে জাতীয় পরিচয় পত্র বাতিল করার জন্য আবেদন করবেন।

মনে রাখবেন একজন মানুষ শুধু একবারই ভোটার হতে পারে।কিন্তু ভুল নাম,ভুল জন্ম নিবন্ধন দিয়ে যদি আরেকবার ভোটার হতে যান তবে আপনাকে আইনত শাস্তি ভোগ করতে হবে।

অপ্রাপ্ত্য বয়সে ভোটার

আপনার বয়স কম হওয়া সত্বেও যদি বেশি দেখিয়ে জাতীয় পরে পত্র নিবন্ধন করেন তাহলে আপনাকে আইনত কঠিন ব্যবস্থার সমুক্ষিন হতে হবে।

See also  জাপান ভিসা চেক করার সব থেকে সহজ নিয়ম ২০২৩।

শিক্ষা সনদ ও বিভিন্ন প্রয়োজনীয় কাগজের সাথে যদি নাম,বয়স বা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য না মিলে এবং সংসদন করা না যায় তাহলে ভোটার আইডি কার্ড বাতিল করতে হবে।

এখন জানবো পরিচয় পত্র(NID) বাতিল করতে কি কি লাগে।

  • আপনি যে পরিচয় পত্র বাতিল করতে চান তার কপি লাগবে।
  • যেই ভোটার আইডি কার্ড বা পরিচয় পত্র রাখবেন তার একটা ফটোকপি।
  • আপনার জন্ম নিবন্ধনের ফটোকপি।
  • ড্রাইভিং লাইসেন্স ও পার্সপোর্ট এর ফটো কপি।

যেভাবে ভোটার আইডি কার্ড বা NID বাতিল করবেন

  • স্থানীয় উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে অফিসার বরাবর একটি লিখিত ক্ষমা প্রার্থনা সহ আইডি কার্ডের বাতিলের জন্য আবেদন করতে হবে।
  • আবেদনের কিন্তু অবশ্যই আপনার Duplicate ভোটার আইডি কার্ড প্রয়োজনীয় জিনিস রাখতে হবে।
  • আপনি আবেদন ফ্রি পরিশোধ করে রশিদ আবেদনের সাথে সংযুক্ত করে দিবেন।

সত্যিকার অর্থে ভোটার আইডি কার্ড পরিবর্তন করা কিন্তু সহজ কাজ নয়।মৃত ব্যক্তির ভোটার আইডি কার্ড এমনি এমনি বাদ হয়ে যায়।কিন্তু জীবিত ব্যক্তির ভোটার আইডি কার্ড নিজে উপস্থিত থেকে বাতিল করতে হয়।